খেলাঘরখেলাঘর

সার্কাস মানেই তো যেখানে থাকে হুপার্স,এক্রোব্যাট্‌স,জাগলার আর দমফাটা হাসির সেই সব জোকাররা। কিন্তু আমাদের ফ্যামিলিতে তো মা,বাবা,দাদা,দিদি,বোনেরা
থাকে তাহলে সেখানে সার্কাস হবে কী করে?

সার্কাস মানেই তো মজা। একবার ভেবে দেখো তো আমাদের সবার বাড়িতেও কি নানা রকমের মজার কান্ড কারখানা ঘটে চলে না!সেখানে আমরা মাঝে মাঝেই  এমন সব কান্ড করে বসি যা সার্কাসকেও হার মানায়। এই মজার কথাটা প্রথম বুঝতে পারেন বিল কেন(Bil Keane)নামের এক ভদ্রলোক। তিনিই শুরু করেন ফ্যামিলি সার্কাস (Family Circus)নামের এক কমিক স্ট্রিপ।

বিল নিজে নিজেই আঁকতে শিখেছেন। 'দ্য নিউ ইয়র্কার' (The New Yorker) ম্যাগাজিনে প্রকাশিত কার্টুন দেখে আঁকা প্র্যাকটিস করতেন আর মনে মনে ভাবতেন চারপাশে যা কিছু দেখছেন একদিন সব এঁকে ফেলবেন। বড় হয়ে সত্যি তিনি নানান ম্যাগাজিনে ছবি আঁকতে শুরু করেন। বিল ছিলেন দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের সৈনিক। ভাবতে অবাক লাগে যুদ্ধের সময়েও তাঁর কার্টুন আঁকা বন্ধ হয়নি। যুদ্ধ করতে করতে যখন তিনি জাপানে তখন ইয়াঙ্ক (Yank) ম্যাগাজিনে প্রকাশিত হয়েছিল তাঁর কমিক স্ট্রিপ। অষ্ট্রেলিয়াতে পৌঁছে তাঁর দেখা হয়ে যায় একটা মিষ্টি মেয়ে থেল কার্নের (Thel Cerne) সঙ্গে। পাঁচ বছর পরে থেলের সাথে বিয়ে হয় বিলের। শুরু হয় বিলের নিজের জীবনের ফ্যামিলি সার্কাস।
 
বিল তখন ব্যস্ত চ্যানেল চাকল্‌স (Channel Chuckles)নামের একটি কমিক স্ট্রিপ নিয়ে। বউ থেল হিমসিম খাচ্ছে বাচ্চাকাচ্চাদের নিয়ে। আর এই সবের মধ্যেও,এত ব্যস্ততার মধ্যেও বিল লক্ষ্য করছেন তাঁর বাড়িটা একটা মজার জায়গা। পাঁচ ছেলে মেয়ে গেইল্‌, নিল্‌, গ্লেন্‌, ক্রিস্টোফার এবং জিফ সেইসঙ্গে তাদের মা থেল ও বিল নিজে রোজই কিছু না কিছু মজার কান্ড কারখানা ঘটিয়ে চলেছে। আর এদের নিয়েই ১৯৬০ সালে বিল শুরু করলেন তাঁর সাড়া জাগানো দুষ্টু মিষ্টি কমিক স্ট্রিপ ফ্যামিলি সার্কাস। পরিবারের সদস্যরাই হলেন এই কমিক স্ট্রিপের চরিত্র,পাত্র পাত্রী।

ফ্যামিলি সার্কাস কমিক স্ট্রিপে আছে একজন মা,একজন কার্টুনিস্ট বাবা ও তাদের চার ছেলে মেয়ে বিলি,ডলি,জেফি আর পিজে। এছাড়াও আছেন তাদের ঠাকুমা আর আছে দুটো পোষা কুকুর ও একটি বিড়াল। বিল এই কমিক স্ট্রিপটা একটি বৃত্তের মধ্যেই আঁকতে পছন্দ করতেন।তিনি মনে করতেন এই ভাবেই হয়তো বোঝাতে পারবেন পরিবারটির খুশিতে ভরা জীবন যাপন। বিল তুলে ধরলেন নানা মজার ঘটনা। যেমন ধর মাকে বাচ্চারা জন্মদিন এ কেক বানিয়ে চমকে দিতে চায়। এদিকে মা অবাক; বাচ্চাগুলো গেল কোথায়? খুঁজতে খুঁজতে রান্না ঘরে গিয়ে দেখা গেল সেখানে সব কিছু লন্ডভন্ড। একজন ডিম নিয়ে খেলা করছে; একজন বারোটা মোমবাতি নিয়ে বসে ভাবছে মা'র বয়স কত; আরেকজন চকোলেট খেয়েই চলেছে।

তাঁর এই প্রচেষ্টা যথাযথ সম্মান পায় যখন ফ্যামিলি সার্কাস কিং ফিচারস্‌ সিন্ডিকেটের (King Features Syndicate) সদস্য হয়ে যায়। আরো অনেক পুরষ্কার আর সম্মান পান বিল। এই কমিক স্ট্রিপের চরিত্রদের কারো বয়স না বাড়লেও বিলের ছেলে মেয়েরা বড় হয়েছে। গ্লেন ওয়াল্ট ডিজনি পিকচার্সের একজন বিখ্যাত অ্যানিমেটর। Little Mermaid আর Arielতো তাঁরই সৃষ্টি। বিলও বুড়ো হয়েছেন কিন্তু ফ্যামিলি সার্কাসে নতুন নতুন ঘটনা আজও ঘটেচলেছে। বিল এর মেয়ে গেইল্‌ যার আদলে তৈরী হয়েছিল ডলি চরিত্রটি সে এখন নিজেদের কোম্পানীর কাজ কর্ম দেখাশুনো করে। কিন্তু একটা প্রশ্ন থেকেই যায় যে বিল এখন নতুন গল্পের সন্ধান পান কোথা থেকে? তাঁর ছেলে মেয়েরা তো বড় হয়ে গেছে। আরে ভাই বিল কি থেমে থাকার পাত্র? বিল এখন নতুন গল্পের রসদ পান তাঁর নাতি নাতনিদের কাছ থেকে। এখন বিলের সাথে ছেলে জেফও কাজে হাত লাগিয়েছে ফ্যামিলি সার্কাসকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য। বাবার মতো জেফও এখন তার নিজের ছেলে মেয়েদের কার্যকলাপ খেয়াল করে চলে। সে খেয়াল করে তার বাচ্চারাও মন দিয়ে খবরের কাগজে পড়ে। জেফ জানে তারা আসলে কমিক্স পড়ছে, ঠিক জেফ যেমনটি পড়তো তার ছোটবেলায়। তার বাচ্চাদের রকম সকম আর দুষ্টুমিগুলো একের পর এক উঠে আসে ফ্যামিলি সার্কাসে।

ফ্যামিলি সার্কাস পড়তে পড়তে মনে হয় আরে আমাদের বাড়িতেও তো এমনই সব মজার ঘটনা ঘটে চলে। পিজে যে কিনা ফ্যামিলি সার্কাসের ভাই বোনেদের মধ্যে সবার থেকে ছোটো,কথাও বলতে শেখেনি সেও কিন্তু নানান মজার ঘটনা ঘটিয়ে চুপচাপ সরে পড়ে। যেমন ধরো মায়ের লিপস্টিক দিয়ে দেওয়ালে আঁকিবুকি কেটে ভালো মানুষটি সেজে বসে থাকা এরকম আরো কত কি। তোমার বাড়িতেও নিশ্চই নানান রকমের মজার ঘটনা ঘটে, সেই সব মজার ঘটনা ছবি এঁকে খুব তাড়াতাড়ি পাঠিয়ে দাও ইচ্ছামতীকে। কে জানে হয়তো তুমিই একদিন হয়ে উঠবে আমাদের বিল কেন।

 

লেখা :
পূর্বাশা
নিউআলিপুর, কলকাতা

ছবিঃ
পূর্বাশা
ফ্যামিলিসার্কাস

এই লেখকের অন্যান্য রচনা