মনে হয় যেন ছুটে চলে যাই স্বপ্নবুড়োর দেশে ,
প্রাণের হাসি কান্না দোলায় ভাসবো উল্লাসে ।
শিউলিবেলায় শিশিরভেজা ঘাসের কোলে বসে,
খেলব আবার রান্নাবাটি সোনার রোদে ভেসে ।
মনে পড়ে শীতের সকাল পৌষ-পাবনের দিনে,
বুড়ির ঘরে আগুন জ্বলে পিঠে-পুলির সনে ।
মনে পড়ে সবুজ মাঠে সেসব ছেলেখেলা,
সন্ধ্যে হলেই এবার যে ভাই পড়তে বসার পালা ।
স্বপ্নমেদুর আঁধার রাতে হ্যারিকেনের আলো,
সুকুমারের 'আবোলতাবোল' মন দুলিয়ে গেলো ।
রামচন্দ্র বনে গেলেন সাথে সীতা, ভাই,
মহাভারতে ভীষ্মদাদু প্রাণে নিলেন ঠাঁই ।
সবই ছিল, সবই গেলো সময়ভেলায় ভেসে,
দিনের ঘড়ি এগিয়ে গেলো দিনের ছন্দ মেনে ।
খেলার পুতুল করলে আড়ি অজানা অভিমানে,
জ্যোৎস্নারাতে 'হুঁকোমুখো' আর আসেনা মনের কোণে ।
ঘাসের ওপর আজও যে ভাই তেমনি শিশির ঝরে ,
শীতের ভোরে বুড়ির ঘরে আজও আগুন ধরে ।
সবই আছে যেমন ছিল সেদিন সন্ধ্যেবেলা ,
হারিয়ে গেছে কোথায় যেন আমার ছোট্টবেলা ।

ছবিঃ শিল্পী ঘোষ