ছোটদের মনের মত ওয়েব পত্রিকা
আজ ভারতের ৬৭ তম প্রজাতন্ত্র দিবস

আজ ভারতের ৬৭তম প্রজাতন্ত্র দিবস পালন করা হচ্ছে।

বছর আসে , বছর যায়। ইচ্ছামতীও একটু একটু করে বড় হয়। তুমিও একটু একটু করে বড় হও।

ভারতবর্ষ নামে আমাদের এই দেশের ও একটু একটু করে বয়স বাড়ে।

তোমার আর ইচ্ছামতীর যেমন প্রতিবছর জন্মদিন পালন করা হয়, তেমনি আমাদের দেশের স্বাধীনতা দিবস এবং প্রজাতন্ত্র দিবস ও প্রতি বছর খুব ধুমধাম করে পালন করা হয়।

১৯৫০ সালে, ২৬ জানুয়ারি তারিখেই প্রথম আমাদের দেশের সংবিধান অনুসারে দেশের কর্মকান্ড এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার সূচনা হয়। ভারতবর্ষ শুধু খাতায়-কলমে নয়, কাজেকর্মে হয়ে ওঠে পুরোপুরি এক গণতান্ত্রিক দেশ।

যদি তুমি ভারতের বাসিন্দা হও, তাহলে তো আজ তোমার স্কুলে নিশ্চয়ই খুব আনন্দ করে প্রজাতন্ত্র দিবস পালন করা হচ্ছে। আর যদি তুমি স্কুলে কোন কারণে না গিয়ে থাকতে পার, অথবা দেশের বাইরে থাক, তাহলে তুমি টেলিভিশনে দেখতে পাবে, কিভাবে রাজধানী নতুন দিল্লির রাজপথে সেনাবাহিনীর জওয়ানদের সাথে সাথে ছোট ছোট ছেলেমেয়েরাও সমান তালে কুচকাওয়াজ করে সেলাম জানাচ্ছে ভারতের প্রজাতন্ত্রকে।

আমাদের দেশের সব কিছু হয়ত খুব ভাল নয়। তেমনি সব কিছুই কিন্তু খুব খারাপও নয়। প্রত্যেকটা মানুষ যেমন ভাল-মন্দ মিশিয়ে হয়, একটা দেশও ভাল আর মন্দ, দুই নিয়েই গড়ে ওঠে। এই দেশের নাগরিক হিসাবে আমাদের দেশের ভালদিকগুলোকে আমরা আরো ভাল করব, নাকি মন্দ দিকগুলোকে নিয়ে দুষ্টুবুদ্ধির প্রয়োগ বেশি করব, সেটা আমাদেরকেই ঠিক করতে হবে।

আজ প্রজাতন্ত্র দিবসে, ইচ্ছামতীর স-ব বন্ধুদের জন্য রইল অনেক অভিনন্দন।

সবে তো বছরের শুরু,তাই জাতীয় পতাকাকে স্যালুট করতে করতে আজকেই মনে মনে একটু ভাব, কিভাবে দেশের ভাল দিকগুলোকে তুমি আরো ভাল কি করে করবে; কোন কোন খারাপ ব্যাপারগুলোকে বাতিল করবে। আমরা সবাই যদি একটু একটু করেও আমাদের এই সুজলা-সুফলা-শস্যশ্যামলা দেশের ভাল দিকগুলিকে আরো ভাল করে তুলি, তাহলে কত্তটা ভাল হবে ভেবে দেখ দেখি...

চাঁদের বুড়ি

ছবিঃ অর্কপ্রিয়া কোলে

undefined

এবারে নতুন কী কী?

আরও পড়তে পারো...

ফেসবুকে ইচ্ছামতীর বন্ধুরা