খেলাঘরখেলাঘর

তিনে তখন বনগাঁ লোকাল

ইস্টিশনে আসছে গাড়ি , সব দিয়েছে ছুট;
উঠতে হবে ঠেলেঠুলে , ভীড়ে ঠাসা ধুত!
কেউ বা আবার ভেবেছিল , আসবে গাড়ি দু’য়ে;
ধড়ফড়িয়ে ছুট লাগাল , মাইকে বলা শুনে।
ওভারব্রীজটা পড়েই আছে
, নিজের মতো একা;
রিস্ক নিয়ে সব যাচ্ছে হেঁটে , লাইন দেখে ফাঁকা!
হাঁটছে সবাই এর-ওর দেখে , নেইকো মনে ভয়;
সময়খানা অনেক দামী , জীবনখানা নয়!
কানে গুঁজেই চলছে হেঁটে , শুনছে বোধহয় গান-
আনমনা হয়ে সবার পিছে , একটা সবুজ প্রাণ।
তিনে তখন বনগাঁ লোকাল
, ছুটছে ভীষণ জোরে;
আপনমনে হাঁটছে বুবুন , হাঁটছে নিজের ঘোরে।
টের বুঝি সে পেল এবার
, চারদিকে শোরগোল-
ঘাড় ঘুরিয়ে বনগাঁ লোকাল ! বাজছে মায়ের ফোন।
ট্রেনটা থেমে
!! স্বপ্ন , না কি সত্যি আছি বেঁচে!
ভীষণ জোরে ব্রেক কষেছে , চালক তাকে দেখে।
অঝোরধারায় কাঁদছে বুবুন
, নতুন জীবন যেন;
এমন ভুল আর কোনদিনও , করব না কক্ষণও।’’

 

মধুমিতা প্রামাণিক
গিরীশ পার্ক , কলকাতা

 

 

 

 

লেখক পরিচিতি

মধুমিতা প্রামাণিক