খেলাঘরখেলাঘর

 

কুকুর

১। কুকুরদের ঘ্রাণশক্তি খুব বেশি, তারা খুব হাল্কা গন্ধের মধ্যেও তফাত করতে পারে। মানুষ যে সব জিনিষের গন্ধ চিনতে পারে, তার থেকে ১০০০ লক্ষ গুণ হাল্কা গন্ধ কুকুরেরা আলাদা করে চিনে নিতে পারে।


২। হাঙরদের শ্রবণশক্তি প্রখর। তারা ৫০০ মিটার দূর থেকে জলের মধ্যে মাছের ডানা চলাফেরার আওয়াজ শুনতে পায়।


৩। পেঙ্গুইনের সাদা-কালো পালক সাঁতার কাটার সময়ে আত্মরক্ষা করতে সাহায্য করে। তাদের পিঠের কালো পালক ওপর থেকে দেখতে পাওয়া কষ্টকপ্র, আর সাম্নের সাদা পালক নিচ থেকে দেখলে মনে হয় জলের মধ্যে সূর্যের আলোর প্রতিফলন হচ্ছে।


৪।প্যান্ডারা হল বিপন্ন প্রজাতি। সংখ্যার নিরিখে সারা বিশ্বে হয়ত মাত্র ২০০০ প্যান্ডা জীবিত আছে।


৫। ঘোড়াদের চোখ যেহেতু তাদের মাথার পাশের দিকে, তাই তারা একবারে প্রায় ৩৬০ডিগ্রি দেখতে পারে।


৬।মনার্ক প্রজাপতিরা তাদের লম্বা পরিযানের জন্য ভিখ্যাত। প্রতি বছর মনার্ক প্রজাপতিরা প্রায় ৪০০০ কিলোমিটার পরিযান করে। গন্তব্যে পৌঁছে স্ত্রীরা ডিম পাড়ে, আর এক নতুন প্রজন্ম উড়ে আবার গ্রীষ্মকালীন বাসস্থানে ফিরে আসে। এইভাবে তাদের পরিযানের চক্র সম্পূর্ণ হয়।


৭। উটপাখী (অস্ট্রিচ) পৃথিবীর সব থেকে বড় পাখি। তারা পৃথিবীর সবথেকে বড় ডিম পাড়ে আর সবথেকে দ্রুত দৌড়াতে পারে (৯৭ কিলমিটার প্রতি ঘন্টা)।


৮। বাঁদরদের দুই ভাগে ভাগ করা যায়, ওল্ড ওয়ার্ল্ড মাঙ্কিস (Old World Monkeys) যারা আফ্রিকা আর এশিয়া তে থাকে; আর নিউ ওয়ার্ল্ড মাঙ্কিস (New World Monkeys) যারা দক্ষিণ আমেরিকাতে বসবাস করে।
ক্যাপুচিন বাঁদরদের মনে করা হয় নিউ ওয়ার্ল্ড মাঙ্কিসদের মধ্যে সবথেকে ধুরন্ধর এক প্রজাতি। তাদের যন্ত্রপাতি ব্যবহার করার, নতুন দক্ষতা শেখার আর আত্মসচেতন হয়ে নানারকমের অঙ্গভঙ্গী করার ক্ষমতা আছে।


৯। ক্যাঙারুরা অনেক উঁচু অবধি লাফাতে পারে, অনেক সময়ে তাদের নিজেদের উচ্চতার তিন গুণ।


১০। সমস্ত প্রাণীদের মধ্যে নীল তিমি সবথেকে জোরে আওউয়াজ করতে পারে। ১৮৮ ডেসিবেলের এই আওয়াজ ৮০০ কিলোমিটার দূর থেকেও শোনা যায়।

 

তথ্য সংকলনঃ
মহাশ্বেতা রায়
কলকাতা