সূচীপত্র-শরত সংখ্যা ২০১১

খেলাঘরখেলাঘর

আমরা এখন আমেরিকার টেক্সাসে কলেজ স্টেশন নামে একটা ছোট্ট শহরে থাকি ।দু-বছর আগে গরমের সময় এখানে এসে পৌঁছাই ।প্রথম কিছু মাস ভালোই কাটল ।কিন্তু পুজোর সময়টা কাটাতে বেশ কষ্ট হয়েছিল । সেই সময় আমেরিকার কিছু উৎসবের ব্যাপারে জানা গেল যেগুলো আমাদের কাছে একেবারে নতুন ।

এখানে ২১শে নভেম্বর থ্যাঙ্কস্-গিভিং নামে একটা উৎসব হয় । প্রত্যেক ঘরে ঘরে আর গীর্জায় এই উৎসব পালন করা হয় ।
আমাদের বাড়ির আশেপাশে বেশ কয়েকটা গীর্জা আছে ।এমনই এক গীর্জার নেমন্তন্নে গিয়ে দেখি অনেক লোকের ভিড় - সবাই আমাদের মত থ্যাঙ্কস্-গিভিং-এর ডিনারে এসেছে ।

প্রথম থ্যাঙ্কসগিভিং
প্রথম থ্যাঙ্কসগিভিং

ডিনারের আগে ছোট একটা নাটিকা অভিনীত হল যার মাধ্যমে আমরা এই উৎসবের ইতিকথা জানতে পারলাম ।এই উৎসবের মূল ভাবনা হল আমাদের সকলকে আহারের সংস্থান করে দেবার জন্য ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জানানো ।এই উৎসবের সূচনা হয় সপ্তদশ শতাব্দীতে । English Separatist Church - এর ১০২ জন সদস্য ধর্মীয় গোঁড়ামি আর কঠোরতা থেকে মুক্ত এক স্বাধীন পৃথিবীর স্বপ্ন চোখে আমেরিকা পাড়ি দেন ।তাঁরা প্রথমে কিছুদিন হল্যাণ্ডে কাটান, তারপর ফের পাড়ি জমান আটলান্টিকের অপর পারের উদ্দেশ্যে । কিন্তু ১৬২০ সালে প্লাইমাউথ পৌঁছে তাঁদের অত্যন্ত প্রতিকূল আবহাওয়ার সম্মুখীন হতে হয় । এক বছরের মধ্যেই প্রাণ হারান ৪৬ জন । তারপর স্থানীয় আদি বাসিন্দারা, যাদের আমরা রেড ইণ্ডিয়ান নামে চিনি, তাদের সাহায্য নিয়ে এঁরা চাষবাস শুরু করেন । পরের বছর ভাগ্য তাঁদের সহায় হয় । প্রচুর ফসল ফলে - সকলের প্রাণধারণের ব্যবস্থাও সুগম হয় । তখন সেই জীবিত সদস্যরা তাদের নতুন রেড ইণ্ডিয়ান বন্ধুদের আর ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জানানোর জন্য শুরু করেন থ্যাঙ্কস্-গিভিং উৎসব ।

চার্চের অনুষ্ঠান
চার্চের অনুষ্ঠান

এবারে জানা যাক ডিনারের মেনুটা কেমন হয়! প্রধান হল টার্কির রোস্ট ।আর আছে ম্যাশড্ পটেটো বা আমাদের চেনা আলুভাতে !! আছে কুমড়ো দিয়ে তৈরী মিষ্টি - পাম্পকিন পাই ,ক্র্যানবেরি স্যস্‌ আর বিভিন্ন রকমের মরশুমী শাকসব্জী ।

টার্কির রোস্ট
টার্কির রোস্ট

পাম্পকিন পাই
পাম্পকিন পাই

সবাই মিলে খাওয়াদাওয়া
সবাই মিলে খাওয়াদাওয়া

কলকাতার দুর্গাপুজো মিস করার দু:খ কিছুটা হলেও কম করেছে এই অচেনা উৎসব ।

আমাদের দৈনিক ব্যস্ত জীবনে আমরা কোথাও যেন ঈশ্বরকে ভুলে যেতে চলেছি । তাই থ্যাঙ্কস্-গিভিং-এর মাধ্যমে ঈশ্বরকে জানাই আমাদের কোটি কোটি ধন্যবাদ!




লেখা ও ফটোগ্রাফঃ
রূপসী দালাল
টেক্সাস, আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র

অন্যান্য ছবিঃ
বিভিন্ন ওয়েবসাইট




এই লেখকের অন্যান্য পোস্ট(গুলি)